সন্ধ্যা ৭:১৫,সোমবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং , ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :

২৮ এপ্রিল থেকে ট্রেনের ৫০ শতাংশ টিকিট অ্যাপে

দৈনিক বাংলা পত্রিকা ডেস্কঃ

আগামী ২৮ এপ্রিল থেকে অ্যাপে পাওয়া যাবে ট্রেনের টিকিট। ৫০ শতাংশ টিকিট বিক্রি হবে অ্যাপের মাধ্যমে। টিকিটের দাম পরিশোধ করা যাবে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমেও। বাকি টিকিট বিক্রি হবে স্টেশনের কাউন্টার থেকে। ঈদযাত্রার আগাম টিকিটের ভিড় এড়াতে এবারের ঈদে কমলাপুরের বাইরেও বিক্রি হবে ট্রেনের টিকিট। ঈদের আগে ঢাকা-পঞ্চগড় রুটে নতুন ট্রেন চালু হবে। ঢাকা থেকে পার্বতীপুর পর্যন্ত বিরতিহীন চলবে এ ট্রেন। ঈদের পর বিরতিহীন ট্রেন চালু হবে ঢাকা-বেনাপোল রুটে।

বৃহস্পতিবার কমলাপুর স্টেশনে অংশীজন সভা শেষে এসব কথা জানান রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। অংশীজন সভা হলেও তাতে গণমাধ্যমের প্রবেশের সুযোগ ছিল না। ছিলেন না রেলে প্রধান অংশীজন যাত্রীরাও। শুধু রেলের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে সভা হয়।

সভা শেষে মন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যম, যাত্রী ও রেলের সেবা গ্রহীতার প্রবেশাধিকার না থাকায় তিনি দুঃখিত। শিগগির তিনি সবাইকে নিয়ে একটি উন্মুক্ত গণশুনানি করবেন। সেখানে রেল সম্পর্কে যাত্রী ও সেবাগ্রহীতাদের অভিযোগ শুনবেন।

আওয়ামী লীগ টানা তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় এলেও রেলের বিদ্যমান দুর্দশার জন্য বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারকে দায়ী করেন রেলমন্ত্রী। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার রেলকে মেরে ফেলেছিল। ১৯৯১ সালে একদিনে রেলের ১০ হাজার কর্মীকে বিদায় দেওয়া হয়। বহু স্টেশন ও রেলপথ বন্ধ করে দেয়। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে সেগুলো চালু করছে।

নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, ৮০ ভাগ যাত্রী পরিবহন হয় সড়ক পথে। তিনি চেষ্টা করছেন রেলের ‘যৌবন’ ফিরিয়ে যাত্রী পরিবহন বাড়াতে।

বর্তমানে রেলের ২৫ ভাগ টিকিট বিক্রি হয় মোবাইল ও অনলাইনে। ১০ ভাগ চলে যায় কোটায়। বাকিটা বিক্রি হয় কাউন্টার থেকে। সেখানে কালোবাজারি ও ভোগান্তির অভিযোগ রয়েছে। রেলমন্ত্রী জানান, ২৮ এপ্রিল অ্যাপ চালু হলে কালোবাজারি বন্ধ হয়ে যাবে। টিকিট পেতে ভোগান্তিও থাকবে না।

নুরুল ইসলাম সুজন জানান, এবারের ঈদযাত্রায় কমলাপুর ছাড়াও বিমানবন্দর ও জয়দেবপুর স্টেশন থেকে আগাম টিকিট বিক্রি করা হবে। এছাড়াও গুলিস্তানে ফুলবাড়িয়ার পুরনো স্টেশন থেকে টিকিট বিক্রি হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা চলছে যেন টিএসসি থেকেও টিকিট বিক্রি করা যায়। এছাড়াও মিরপুরে পুলিশ কনভেশন সেন্টার থেকেও টিকিট বিক্রির চেষ্টা করা হচ্ছে। মোট ছয় জায়গা থেকে টিকিট বিক্রি হবে, যা আগে শুধু কমলাপুর থেকে হতো।

মন্ত্রী জানান, আগামী ২৬ এপ্রিল ঢাকা-রাজশাহী রুটে বিরতিহীন ট্রেন ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রেল সচিব মোফাজ্জেল হোসেন, রেলের মহাপরিচালক কাজী মো. রফিকুল আলম প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

দৈনিক বাংলা পত্রিকা / শাখাওয়াত হোসেন

 
Express Your Reaction
Like
Love
Haha
Wow
Sad
Angry
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।