বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১০:১৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :

গফরগাঁওয়ে অভিমানী শিশুর ঘরে ফেরার গল্প

মোঃ আশরাফুল ইসলাম আপেল
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২ মে, ২০২১
  • ১৫৭১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
গফরগাঁওয়ে অভিমানী শিশুর ঘরে ফেরার গল্প 789 600x337

মা মারা যাওয়ার পর বাবার দ্বিতীয় বিয়ে মেনে নিতে পারেনি ৬ বছরের শিশু আবিদ হাসান হালিম। মৃত মা শিরিনা বেগমের জায়গায় সৎ মা কে মেনে নিতে না পারায় এক সময় বুক ভরা অভিমান নিয়ে বাড়ি থেকে অজানার পথে বাড়ায় ৬ বছরের শিশুটি। ২০১৪ সালে হারিয়ে যাওয়া শিশুটি ৭ বছর পর ১৪ বছরের কিশোর আবিদ হাসানকে ফিরে পেলো উপজেলার রাওনা ইউনিয়নের ধোপাঘাট গ্রামের তার পরিবারের লোকজন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শাহাবুল আলম ও হালিমের ভাই মনির হোসেন হালিমকে নিয়ে রবিবার বিকালে বাড়িতে উপস্থিত হলে স্বজনরা হালিমকে পরম আদরে বুকে টেনে স্বজনরা ।
৬ বছরের শিশু হারিয়ে যাওয়ার পর তার পিতা আউয়াল মিয়াসহ পরিবারের লোকজন বহু স্থানে খোজাঁখুািঁজ করেও সন্ধান করতে পারেনি আবিদ হাসান হালিমের। কিছুদিন পর হালিমের পিতা আওয়াল মিয়াও মারা যায়। তার ভাই মনির হোসেন শিশু হালিম বিভিন্ন স্থানে খুঁেজও সন্ধান পায়নি । কমলাপুর রেলওয়ে ষ্টেশন থেকে পেয়ে এক ব্যক্তি হালিমকে পেয়ে নারায়নগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানার চৌধুরীবাড়ি এলাকার সমাজসেবা অধিদপ্তরের সরকারি আশ্রয়ন কেন্দ্রে কর্মকর্তাদের হাতে তুলে দেয় । এতিম শিশু হিসেবে এই আশ্রয়ন কেন্দ্রেই ৭ বছর ধরে সরকারি কর্মকর্তাদের তত্তাবধানে আশ্রিত ছিল হালিম। নিজের নাম ঠিকানা আবছা আবছা মনে পড়তো তার কিন্ত নাম ঠিকানা বলার মতো কাউকে খুঁেজ পেতো না । ঘটনাক্রমে এই আশ্রয়ন কেন্দ্রের কর্মকর্তা গফরগাঁও উপজেলার বাসিন্দা তফাজ্জল গোলন্দাজ কিশোর বয়সী হালিমের পরিচয় জানতে রাওনা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শাহাবুল আলমের সাথে যোগাযোগ করে। ইউপি চেয়ারম্যান শাহাবুল আলম হালিমের পরিবারের সাথে যোগাযোগ কওে তার পরিচয় নিশ্চিত হয়। রবিবার সকালে ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শাহাবুল আলম হালিমের ভাই মনিরকে নিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার চৌধুরীবাড়ি এলাকার সমাজসেবা অধিদফতরের সরকারি আশ্রয়ন কেন্দ্রে উপস্থিত হয় । সকল অফিসিয়াল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে সিদ্ধিরগঞ্জ সমাজসেবা অধিদফতরের সরকারি আশ্রয়ন কেন্দ্রের উপপরিচালক মোছাঃ কামরুন্নাহার আরজুর মাধ্যমে হালিমকে তুলে দেওয়া হয় তার ভাই মনিরের হাতে । রবিবার বিকালে চেয়ারম্যান মোঃ শাহাবুল আলম ধোপাঘাট গ্রামের হালিমদের বাড়িতে উপস্থিত হয়ে ৭ বছর পর আবিদ হাসান হালিমকে তুলে দেয় তার স্বজনদের হাতে । এ সময় ১৪ কিশোর আবিদ হাসান হালিম ও তার পরিবারের লোকজন আনন্দে আত্বহারা হয় ।
আবিদ হাসান হালিম জানায় , সে তার তার পরিবারের কাছে আসতে অনেক খুশি । এভাবেই শেশ হয়েছে ৫ বছরের শিশু আবিদ হাসান হালিমে অভিমানের গল্প ।
স্থানীয় রাওনা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শাহাবুল আলম বলেন, হারিয়ে যাওয়া সকল শিশু যাদের পরিচয় এক সময় হালিমের ‘পথ শিশু’ হয় তারা সবাই তাদের পরিবারকে ফিরে পাবে এটাই আমাদের প্রত্যাশা ।

দৈনিক বাংলা পত্রিকা / আতাউর রহমান মিন্টু

Express Your Reaction
Like  গফরগাঁওয়ে অভিমানী শিশুর ঘরে ফেরার গল্প like
Love  গফরগাঁওয়ে অভিমানী শিশুর ঘরে ফেরার গল্প love
Haha  গফরগাঁওয়ে অভিমানী শিশুর ঘরে ফেরার গল্প haha
Wow  গফরগাঁওয়ে অভিমানী শিশুর ঘরে ফেরার গল্প wow
Sad  গফরগাঁওয়ে অভিমানী শিশুর ঘরে ফেরার গল্প sad
Angry  গফরগাঁওয়ে অভিমানী শিশুর ঘরে ফেরার গল্প angry

Facebook Comments

এই সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2018 dainikbanglapatrika
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Aanin Mahmodul
themebazar-2281